মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

প্রশিক্ষণের তালিকা

 যে কোন প্রকার সামাজিক জাগরণের কাজকেই আমরা সামাজিক আন্দোলন বলে মনে করতে পারি । তো এই আন্দোলন কিভাবে চালাতে হবে তার বিস্তারিত বর্ননা করা হ'ল । আন্দোলন কে চালাতে পারে ? আর কে চালাতে পারেনা ? সংগঠনের মাধ্যমে আমরা এই দেশের মাধ্যমে এক নতুন স্বতন্ত্র আন্দোলনের নির্মান করতে চাই । এই আন্দোলন করার জন্য আন্দোলনকারী কর্মকর্তাদের কিছু বিষয় জানা মহত্বপূর্ণ । এর প্রথম বিষয় হচ্ছে-

 আন্দোলন কে চালাতে পারে ?  এবং কে  ন্দোলন চালাতে পারেনা ?
এ বিষয়ে আন্দোলনকারী কর্মকর্তাদের জানকারী থাকা দরকার ।  অনেক বার এরকম হয় যে, আমরা যাদের প্রতি আশা করি যে তাঁরা আন্দোলন চালাবেন; কিন্তু তাঁরা আন্দোলন চালাতে পারেন না । তখন আমাদের মধ্যে নিরাশা বা হতাশা তৈরী হয় । আমাদের দুঃখ হয় । পৃথিবীতে এর থেকে বড় দুঃখ আর কিছু হতে পারেনা । সে জন্য এই হতাশা, নিরাশা বা দুঃখ যাতে না পেতে হয় তার জন্য কিছু বিষয় জেনে রাখা খুব দরকার । আন্দোলন কে চালাতে পারবে আর কে চালাতে পারবে না এ বিষয়ে পূর্ণ অনুধাবন হওয়া একান্ত প্রয়োজন । বন্ধুরা, যে লোকেরা সুখ-স্বাচ্ছন্দে জীবন অতিবাহিত করে তারা আন্দোলন চালাতে পারেনা । এটা কে বুঝতে পারবে ? এটা আন্দোলনকারী কর্মকর্তা কে বুঝতে হবে । যার কাছে বাংলো, গাড়ী সব কিছু সুখ-স্বাচ্ছন্দের জন্য উপলব্ধ আছে, তার কাছে আন্দোলনের আশাকরা বৃথা । কারণ এরা সুবিধা উপভোগী লোক । আমাদের মূলনিবাসী বহুজন সমাজের কর্মকর্তাদের এটা ঠিক করা উচিত যে, কেউ করুক বা না করুক আমাকে এই আন্দোলনের কাজ করতে হবে । এরকম চিন্তাধারা নিজের মধ্যে ধারন করলে তবেই সে আন্দোলনের কাজ করতে পারবে । তবে আন্দোলনকারীদের একটা বিষয় ধ্যান রাখা দরকার যে, সুখভোগী ও সুবিধাভোগী লোকেরা আন্দোলন চালাতে পারেনা । অন্য দিকে অনুকুল পরিস্থিতি হলে আন্দোলনের কাজ করবো এরকম অনেকেই বলে, তারা কিন্তু যারা এরকম বলে, তারা কোন দিন এই আন্দোলন চালানোর কাজ করতে পারেনা । কারণ অনুকুল বাতাবরন, অনুকুল সময় বা অনুকুল পরিস্থিতির নির্মান কখনই হয়না । পৃথিবীতে আজ পর্যন্ত এরকম কখনও হয়নি । যদি অনুকুল বাতাবরন আসে, অনুকুল  সময় আসে, অনুকুল পরিস্থিতি তৈরী হয় কাজ করার জন্য, তাহলে আন্দোলন করার কি দরকার ? এই কাজ যখন কেউই করতে চায় না তখন আমাদের করতে হবে । আর যখন সবাই করতে চাইবে তখন আমাদের এই কাজ করার কোন আবশ্যকতা আছে কি ? এই নির্নয় কে গ্রহন করবেন ? যিনি মনে করেন কেউ করুক আর না করুক আমাকে আন্দোলনের কাজ করতে হবে, একমাত্র তিনিই এই নির্নয় গ্রহন করার আধিকারী । আপনারা প্রশিক্ষণে অংশ গ্রহন করেছেন বলেই আপনাদের উপর চাপিয়ে দেওয়া হবেনা যে, আপনাদেরকে আন্দোলন করা উচিত । বরং এ নির্নয় আপনাদের গ্রহন করা উচিত যে, আপনারা আন্দোলনে সহভাগী হবেন কিনা ? তবে এখানে একটা কথা বলে রাখি, এখানে দুঃখ করার বা আপশোষ করার জায়গা বা সময় নেই । নির্নয় আপনাকেই গ্রহন করতে হবে । আর এই কাজ কখনো dependent able ও হতে পারেনা । অর্থাৎ অমুক এলে আমি আসবো । অমুক আন্দোলনের কাজ করলে আমিও করবো । এই ভাবনাটার এখানে কোন স্থান নেই । এই ধরনের condition যারা করেন তাদের জন্য এ কাজ নয় । It is not conditional work . এখানে একটা কথা বলি, জর্জ ওয়াশিংটন দু'জন আছেন । একজন আমেরিকার রাষ্ট্র অধ্যক্ষ, অন্য জন হচ্ছেন-জর্জ ওয়াশিংটন কার্গো । এই কার্গো বলেছেন যে, start where you are. আপনি যেখানে আছেন সেখান থেকেই শুরু করুন । মনে করুন আজ আপনারা এখানে এই প্রশিক্ষন শিবিরে এসেছেন, তো আজ এখন এখান থেকেই শুরু করুন । অমুক জায়গা, অমুক সময়, অমুক দিন থেকে শুরু করা দরকার- এরকম ভাবনা উচিত নয় । আপনি যেখানে আছেন সেখান থেকেই শুরু করুন । use what you are . আপনার মধ্যে যে মহত গুণ আছে তার প্রয়োগ করুন

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter